নিজস্ব সংবাদদাতা ● খড়গ্রাম

‘দাদার অনুগামী’ নাকি ‘দিদি’র দল তৃণমূল, কে করবে জেলা পরিষদের প্রয়াত কর্মাধ্যক্ষ মফিজুদ্দিন মণ্ডলের স্মরণসভা? এই নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই সরগরম ছিল মুর্শিদাবাদ। শেষ পর্যন্ত স্মরণসভা করলেন দাদার অনুগামী তথা মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেন মণ্ডল। রবিবার বিকেলে খড়গ্রামের মাড়গ্রামে প্রয়াত মফিজুদ্দিন মণ্ডলের বাড়ি সংলগ্ন মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে আয়োজিত স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। প্রত্যাশিত ভাবেই মুর্শিদাবাদের বিভিন্ন এলাকার বহু মানুষ এই স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন। তবে শুভেন্দু অনুগামীরা ছাড়া শাসকদলের ছোট-বড়-মেজো নেতারা এ দিনের স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন না।

জেলা পর্যবেক্ষক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর থেকে রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে দলের কাজে সেভাবে দেখা যায়নি। বরং অরাজনৈতিক ব্যানারে দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামের কর্মসূচিতে দেখা গিয়েছে। দু’দিন আগে মুর্শিদাবাদের বেলডাঙাতেও এসেছিলেন তিনি। বিসর্জনের সময় নৌকাডুবিতে মৃত পাঁচ জনের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে পরিবার পিছু দু’লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্যও করেছেন। এরই মধ্যে শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেন মণ্ডল জেলা পরিষদের প্রয়াত কর্মাধ্যক্ষ মফিজুদ্দিন মণ্ডলের স্মরণসভার আয়োজন করেন জেলা পরিষদের ব্যানারে। অরাজনৈতিক ব্যানারে স্মরণসভার বিষয়টি নজরে আসতেই শাসকদল তৃণমূল ওই সভা ‘হাইজ্যাকের’ সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তৃণমূল নয়, জেলা পরিষদের ব্যানারে স্মরণসভা করলেন সভাধিপতি মোশারফ হোসেন।

অন্যদিকে, এ দিনই নওদা বিধানসভা এলাকার বুথভিত্তিক কর্মী সম্মেলন করে তৃণমূল। প্রত্যাশিত ভাবেই সেই সভায় না গিয়ে খড়গ্রামের স্মরণসভায় গিয়েছিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেন মণ্ডলের অনুগামীরা। নওদার বুথভিত্তিক সম্মেলনে মূলত জেলা তৃণমূল সভাপতি আবু তাহের খানের অনুগামীরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here