শুভদীপ ভট্টাচার্য ● বহরমপুর

লোকসভা ভোটের টানটান মূহুর্ত। ভোট লুট রুখতে সকাল থেকে দৌড়চ্ছেন কংগ্রেস প্রার্থী অধীর চৌধুরী। বহরমপুরের শ্রীগুরু পাঠশালায় ভোটকেন্দ্রের লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন রেণুকা মাড্ডিও। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে দেরি হওয়ায় পরে ভোট দেবেন বলে তিনি বাড়ি ফিরে যান। বাড়ি গিয়ে রেণুকা দেখেন, সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছে তাঁর ছেলের দেহ। হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও তাঁকে বাঁচানো যায়নি। ছেলের দেহ মর্গে রেখে রেণুকা ফের দাঁড়ান ভোটের লাইনে। ভোট দেওয়ার পরে ছেলের দেহ সৎকার করেন তিনি।

সেই তখনই রেণুকা জানিয়েছিলেন, অধীর চৌধুরীকে জেতাতেই তিনি ভোট দিতে এসেছেন। খবর পেয়ে অধীর চৌধুরী ছোটেন রেণুকার বাড়ি। ডাকেন দিদি বলে। ভাইয়ের কাছে কান্নায় ভেঙে পড়েন রেণুকা। জানান তাঁর অভিযোগ, আকুতি। সোমবার, ফোঁটা নিতে সকাল সকাল রেণুকা মাড্ডির বাড়িতে হাজির হয়ে যান অধীর চৌধুরী। রেণুকার বাড়ি বহরমপুরের মাজদিয়াপাড়াতে। এ দিন তিনি ভাইফোঁটার আয়োজনে কোনও খামতি রাখেননি।

অধীর চৌধুরী বলেন, ”ভাইফোঁটা একটি পবিত্র উৎসব। দিদিদের আদর ভাইদের কাছে সবসময় অমূল‌্য, অতুলনীয়।” ফোঁটা দেওয়ার পরে রেণুকা মাড্ডি বলেন, ”আমার নিজের দাদা মারা গিয়েছেন। এখন এই একটাই ভাই। যতদিন বাঁচব, ফোঁটা দেব ভাইকে। ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা, ভাইকে মুখ‌্যমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চাই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here