তানিয়া বন্দ্যোপাধ্যায় পাল ● কলকাতা

রাজ‍্যে করোনা সংক্রমণ কমছে। কয়েক সপ্তাহ ধরেই স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া তথ‍্য জানাচ্ছে, সংক্রমণের হার নিম্নমুখী। তাই রাজ‍্যের সমস্ত হাসপাতালে করোনার জন‍্য নির্ধারিত শয‍্যাও কমানো হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা।

স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া তথ‍্য অনুযায়ী, রাজ‍্যে শেষ কয়েকদিন নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দু’হাজারের কাছাকাছি। অধিকাংশ রোগীর বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা সম্ভব। মৃত‍্যু হার কমেছে। সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৫ শতাংশ। এই পরিস্থিতিতে অতিমারির জন্য নির্ধারিত শয‍্যা কিছুটা কম করা যেতে পারে বলে মনে করছেন প্রশাসনিক মহল।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুজোর পরে রাজ‍্যের সরকারি হাসপাতালে হাজার খানেক শয‍্যা বাড়ানো হয়েছিল। সেপ্টেম্বরের শেষ থেকেই রাজ‍্যে মারাত্মক ভাবে করোনা বাড়তে শুরু করে। নির্ধারিত শয‍্যায় রোগী পরিষেবা দেওয়া মুশকিল হয়ে যাচ্ছিলো। তাই করোনা রোগীর পরিষেবা দিতে শয‍্যা বাড়ানো হয়েছিল। সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালেও শেষ কয়েক মাসে করোনা শয‍্যা বাড়ানো হয়।

সম্প্রতি রাজ‍্য সরকারের দেওয়া তথ‍্যের উপরে নির্ভর করে রাজ‍্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলো করোনা শয‍্যা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যদিও চিকিৎসকদের একাংশ জানাচ্ছেন, রাজ‍্যে করোনা পরীক্ষা কমানো হয়েছে। তাই অনেক সময়  রোগী চিহ্নিত করা যাচ্ছে না। এই প্রবণতা চলতে থাকলে বিপদ বাড়বে। তাই আরও বেশি করোনা পরীক্ষা জরুরি।

যদিও স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা এই অভিযোগ মানতে নারাজ।‌ তাঁরা জানাচ্ছেন, রাজ‍্যে পর্যাপ্ত করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। দিনে ৪২ হাজারের বেশি মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। যদিও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন, এই পরীক্ষা যথেষ্ট নয়।

(ফিচার ছবি গুগল থেকে নেওয়া)