লেখাপড়ায় বরাবরই ভাল। কিন্তু ক্লাস সিক্সেই তাঁকে পেয়ে বসে মোবাইল আর কম্পিউটারের নেশা। চিন্তিত অভিভাবকেরা শুরু করলেন শাসন। কিন্তু সেই যন্ত্র-নেশা থেকে তাঁকে বের করা যায়নি। ফল খারাপ হতেই পারত। কিন্তু হল না। মোবাইল, কম্পিউটার নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করতে করতে তিনি শিখে ফেললেন ভিডিয়ো এডিটিংয়ের নানা কলাকৌশল। তারপরে সে সব ভিডিয়ো নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলেও আপলোড করতে শুরু করলেন। সাবলক হতে না হতেই এখন তিনি একজন সফল ইউটিউবার। তাঁর ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার দু’লক্ষ পেরিয়েছে। জামালপুরের সফল ইউটিউবার আবরার ফারদিন সম্প্রতি সময় দিয়েছিলেন সাদাকালো-কে। তাঁর সঙ্গে কথা বললেন সুদীপ জোয়ারদার

সাদাকালো: এত কম বয়সে একজন সফল ইউটিউবার, কেমন লাগে নিজেকে?
ফারদিন: সাফল্য শব্দটা আপেক্ষিক। আর তাছাড়া আমি সে ভাবে ভাবিও না নিজেকে। এটা ঠিক আমার  ইউটিউব ভিডিয়োর ভিউয়ার্স বলুন, সাবস্ক্রাইবার বলুন একটা উল্লেখ করার মতো জায়গায় এসেছে। কিন্তু আমার কাজ তো ইউটিউবের মাধ্যমে নিজের যতটুকু অভিজ্ঞতা আছে, হচ্ছে, তা সবার সঙ্গে শেয়ার করা। এবং একই সঙ্গে নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। এগুলো তো শেষ হওয়ার নয়।
সাদাকালো: কী ধরনের ভিডিয়ো আপনি ইউটিউবে দেন?
ফারদিন: আমার ভিডিয়োগুলো ভিডিয়ো এডিটিং সংক্রান্ত।
সাদাকালো: ভিডিও এডিটিংয়ের কাজটা কি পুরোটা নিজে নিজেই শিখেছেন ?
ফারদিন: এ ব্যাপারে আপনি আমাকে একেবারে স্বশিক্ষিত বলতে পারেন। বাড়িতে একটা কম্পিউটার ছিল। বেসিক নলেজ সেখান থেকেই। তবে বাড়ির কম্পিউটারটি খুব উন্নতমানের ছিল না। ভিডিয়ো এডিটিংয়ের কাজ ভালোভাবে শিখতে গিয়ে আপডেট করতে হয়েছে।
সাদাকালো: সেটার ব্যবস্থা কি অভিভাবকেরাই করে দিলেন?
ফারদিন:  একেবারেই না। পড়াশোনায় ক্ষতি করছি ভেবে অভিভাবকদের তো আমার এই কাজটা নিয়ে প্রথম থেকেই আপত্তি ছিল। কিন্তু শেখার নেশা যেহেতু তখন আমাকে পেয়ে বসেছে, তাই আপডেট করার খরচ নিজেকেই জোগাড় করতে হল। সেটা কখনও টাকার বিনিময়ে কারও ছবি তুলে, কখনও কোনও অনুষ্ঠানের ভিডিয়ো করে দিয়ে।
সাদাকালো: এরপর সব কি মসৃণ ভাবে এগোল?
ফারদিন: নাহ্, আরও বাধা এল। ২০১৭ সাল তখন। ছেড়েই দিয়েছিলাম কাজটা। কারণ, এ বারে ভাল একটা কম্পিউটার আর ভাল একটা মোবাইলের প্রয়োজন হয়ে পড়ল। নিজে উপার্জন করে আর কত টানব? একটা ভিডিয়ো এ সময় আমি ইউটিউবে আপলোড করি। কিন্তু টেকনিক্যাল ত্রুটি সেখানে এত বেশি হয়ে যায় যে বন্ধুবান্ধবেরা আমাকে নিয়ে হাসাহাসি শুরু করে। মনের দুঃখে তাই ছেড়েই দিই কাজটা।
সাদাকালো: তারপরে?
ফারদিন: সাইকেলে স্টান্ট শিখেছিলাম। তখন সেটাই আমার আশ্রয় হয়ে ওঠে। কিন্তু সাইকেল স্টান্ট করতে গিয়ে একদিন বেশ বড় দুর্ঘটনা ঘটে। জখম হয়ে ভর্তি হই হাসপাতালে। তখন জেএসসি পরীক্ষার আর মাস তিনেক বাকি।  হাসপাতালে আহত হয়ে শুয়ে আছি। সেই সময় বাড়ির অভিভাবকেরা দেখতে এসে বলেন, সাইকেল নিয়ে ও সব ছেড়ে দিলে জেএসসি পরীক্ষার পরে তাঁরা ভাল কম্পিউটারের ব্যবস্থা করবেন।
সাদাকালো: তারপর পরীক্ষার পরে সব কিছু হাতে পেয়ে একেবারে নতুন উদ্যমে ঝাঁপিয়ে পড়লেন, তাই তো?
ফারদিন: একদম তাই।
সাদাকালো: ইউটিউবে প্রথম ব্রেক কী ভাবে এল?
ফারদিন: ২০১৯ সালের ১৩ জানুয়ারি একটা  ভিডিয়ো আপলোড করেছিলাম। ফানি ভিডিয়ো এডিটিং করা নিয়ে।  সেটা ভাইরাল হয়। এরপর সাবস্ক্রাইবার, ভিউয়ার সবই আমার চ্যানেলে দ্রুত বাড়তে থাকে ।
সাদাকালো: ইউটিউব থেকে আপনি কী ভাবে আয় করেন?
ফারদিন: তিন ভাবে আয় হয় আমার। একটা হচ্ছে, অ্যাড থেকে। দ্বিতীয় হচ্ছে, আমার ভিডিয়ো এডিটিং  সংক্রান্ত একটা ভিডিয়ো-কোর্স প্যাক আছে। এটা বিক্রির মাধ্যমে। আর তৃতীয় হচ্ছে, স্পনসরশিপের মাধ্যমে।
সাদাকালো: সব মিলিয়ে ইউটিউব থেকে এখন কেমন আয় হয়?
ফারদিন: সব মিলিয়ে মাসে প্রায় চল্লিশ হাজারের কাছে।
সাদাকালো: আপনার এখন বয়স কত?
ফারদিন: ১৮ চলছে।
সাদাকালো: ১৮ বয়সেই আপনি ঘরে বসে ইউটিউবের মাধ্যমে এই আয় করছেন, তরুণদের জন্য এটা খুবই অনুপ্রেরণার। আচ্ছা নতুন যাঁরা সফল ইউটিউবার হতে চান, তাঁদের উদ্দেশে আপনার বার্তা কী?
ফারদিন: মানুষ যা লিখে ইউটিউবে সার্চ করে সেই ধরনের ভিডিয়ো তৈরি করুন। তবে সে কাজটা ভালভাবে শিখেই করতে হবে। সফল কেউ একদিনে হয় না। আমিও একদিনে এই জায়গায় আসিনি। এরজন্য অনেক ধৈর্য, অনেক পরিশ্রম বিনিয়োগ করতে হয়েছে। বাধাও কম আসেনি। কিন্তু ভালবাসা ছিল বলেই কিছুটা এগোতে পেরেছি। এবং বিশ্বাস, আরও এগোতে পারব।  তরুণদের উদ্দেশে এটাই বলার, সাফল্য নিয়ে ভাববেন না। এক মনে নিজের কাজটা নিখুঁত ভাবে করার চেষ্টা করুন। সাফল্য এমনিই আসবে।
সাদাকালো: আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী? এই ইউটিউবারই থেকে যাওয়া নাকি অন্য কিছু?
ফারদিন: ইউটিউব তো থাকবেই, কিন্তু যে কাজটা আমি শিখেছি এবং এখনও শিখে চলেছি, বৃহত্তর ক্ষেত্রে সেটা প্রয়োগ করতে চাই।
সাদাকালো: বৃহত্তর ক্ষেত্র বলতে?
ফারদিন: সিনেমা।
সাদাকালো: আপনার স্বপ্নপূরণ হোক, শুভকামনা রইল…সাদাকালোর সঙ্গে কথা বলার জন্য ধন্যবাদ।
ফারদিন: ধন্যবাদ আপনাকেও। সাদাকালোর সকলের জন্য আমার তরফ থেকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা, ভালবাসা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here