কল্লোল প্রামাণিক ● করিমপুর

মাসখানেক ধরে ওঁরা যেন নাওয়া-খাওয়াও ভুলতে বসেছেন! সকালে হোয়াটসঅ্যাপ, ফোনাফোনি। তারপরেই বেরিয়ে পড়া হাজারও কাজে। কেউ ছুটছেন বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করতে, কেউ ব্যস্ত চাঁদার রসিদ নিয়ে। কেউ যোগাযোগ করছেন লিটল ম্যাগাজিনের সম্পাদকের সঙ্গে তো কেউ আবার দেখে নিচ্ছেন মেলা প্রাঙ্গণের স্টলের কাজ। কাজের যেন কোনও শেষ নেই!
এ ভাবেই হার না মানা জেদকে সম্বল করেই ছুটে চলেছেন ওঁরা। হাতে রয়েছে আর মাত্র দু’টো দিন। তারপরেই ‘দর্পণ…মুখের খোঁজে’ সাহিত্য পরিষদের উদ্যোগে ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে করিমপুরে শুরু হচ্ছে লিটল ম্যাগাজিন মেলা। চলবে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। দর্পণের সম্পাদক দোবজ্যোতি কর্মকার বলছেন, ‘‘এত অল্প সময়ে এই বিপুল আয়োজন করা বেশ কঠিন। তবে কমিটির সকলেই হাসিমুখেই সেই কঠিন কাজটা করে চলেছেন।’’
গত প্রায় কুড়ি বছরেরও বেশি সময় ধরে সীমান্তঘেঁষা জনপদে বইমেলা করে আসছে করিমপুর বইমেলা কমিটি। একটা বইমেলাকে ঘিরে প্রান্তিক এই এলাকার আবেগ প্রশংসার দাবি রাখে। তবে এ বার কোভিড-কারণে সেই বইমেলার আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে করিমপুরের সর্বস্তরের মানুষের একটা মনখারাপ ছিলই। তারপরে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হতেই ‘দর্পণ’-এর লোকজন একটা লিটল ম্যাগাজিন মেলা করবেন বলে সিদ্ধান্ত নেন।
‘দর্পণ… মুখের খোঁজে’ পত্রিকা গত ১৮ বছর ধরে ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত হচ্ছে। পত্রিকার সম্পাদক দেবজ্যোতি কর্মকারের দাবি, ‘‘প্রায় ষাটের দশক থেকে করিমপুরে লিটল ম্যাগাজিন চর্চা অব্যাহত। এখনও পর্যন্ত প্রায় ৬০টিরও বেশি বিভিন্ন স্বাদের লিটল ম্যাগাজিন প্রকাশিত হয়েছে। তবে আমরাই এই প্রথম লিটল ম্যাগাজিন মেলার আয়োজন করছি।’’ তাঁর সংযোজন, ‘‘দীর্ঘ লকডাউনে আমরা সবাই ঘরে থাকতে থাকতে হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। এই মেলা আমাদের বাড়তি অক্সিজেন জোগাবে। এলাকার ছোট পত্রিকা এবং হস্তশিল্পের আরও ব্যাপ্তি ঘটানোই মেলার উদ্দেশ্য।”
মেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সুব্রত পাল, অমিত দাস, হামিদুল ইসলাম শেখ, কাশীকান্ত চৌধুরী, তনুশ্রী সিংহ রায়, সৌম্য বিশ্বাস, অনুরাধা দাস, দীপঙ্কর বিশ্বাস, পিন্টু সাহা, প্রসাদ নন্দী, জীবানন্দ শীল বলছেন, ‘‘স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আমরা মেলার আয়োজন করছি। মেলার তিন দিন থাকছে নানা ধরনের সাংস্কৃতিক ও প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান।” আয়োজকদের অন্যতম নূর সাহিম রেজা, মিমি সরকার, সুবোধ রায় ও রাসরঞ্জন চট্টোপাধ্যায় বলছেন, ”হস্তশিল্পীরা তাঁদের নানা জিনিস তৈরি করে রেখেছেন। লকডাউনে বিক্রি কমে গিয়েছিল। তাই তাঁদের উৎসাহিত করা আমাদের আরও একটি লক্ষ্য।”
করিমপুরে প্রথম লিটল ম্যাগাজিন মেলা ঘিরেও উন্মাদনা এখন চরমে। স্থানীয় ছাত্রী সম্পৃক্তা দত্তের কথায়, ‘‘আমাদের স্কুল সেই কবে থেকে বন্ধ। করোনার কারণে বইমেলাও হল না। এ বার এই লিটল ম্যাগাজিন মেলায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে পারব জেনে খুব আনন্দ হচ্ছে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here