ইন্দ্রাশিস বাগচী ● নিমতিতা

গত বুধবার রাতে নিমতিতা স্টেশনের দু’নম্বর প্ল্যাটফর্মে বোমা বিস্ফোরণ ঘটে। তাতে গুরুতর জখম হন রাজ্যের শ্রম দফতরের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। তার পরে কেটে গিয়েছে ৭২ ঘণ্টা। দফায় দফায় ঘটনার তদন্ত করেন সিআইডির আধিকারিকেরাও। শুক্রবার ঘটনাস্থলে আসেন ফরেন্সিক দলের বিশেষজ্ঞরাও। তাঁরা ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গিয়েছেন।
এ দিকে মঙ্গলবারেই নিমতিতা স্টেশনের দু’নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে মাত্র ১০৩ ফুট দূরে প্ল্যাটফর্মের ছাদ থেকে গোয়েন্দারা পায়ের একটি বুড়ো আঙুল উদ্ধার করেন। প্রাথমিক তদন্তে গোয়েন্দাদের অনুমান, বিস্ফোরণের তীব্রতায় কারও পায়ের বুড়ো আঙুল ছিটকে প্ল্যাটফর্মের ছাদে গিয়ে পড়েছিল। সেই বুড়ো আঙুলটি পরীক্ষা করে দেখছেন ফরেন্সিকের আধিকারিকেরা। যা দেখে গোয়েন্দাদের অনুমান, সে দিনের বিস্ফোরণের তীব্রতা যথেষ্ট বেশি ছিল।
বিস্ফোরণের সেই ভয়াবহ অভিজ্ঞতার ছবি ভুলতে পারছেন না স্টেশন সংলগ্ন দোকানদারেরাও। তাঁদের চোখে মুখে এখনও আতঙ্কের ছাপ স্পষ্ট। স্টেশন সংলগ্ন একটি মুদিখানার দোকানের মালিক অপূর্ব সাহা বলেন, “রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফিরছিলাম। সেই সময় স্টেশনের ভেতর থেকে আচমকা বিকট আওয়াজ শুনতে পাই। তারপরেই আর্তনাদ আর চিৎকার শুরু হয়। পরে বুঝতে পারি বিস্ফোরণ হয়েছে। ঘটনার পরে যথেষ্ট আতঙ্কে রয়েছি।”
ঘটনার পর থেকেই ব্যারিকেড করে ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলা হয়েছে। অন্যদিকে, আজ রবিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসছেন এডিজি (সিআইডি) অনুজ শর্মা। সব মিলিয়ে তদন্তের গতি কোন দিকে এগোয় সেই দিকেই তাকিয়ে নিমতিতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here