শুভদীপ ভট্টাচার্য ● বহরমপুর

তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শ্যালিকা মেনকা গম্ভীরকে কয়লা কাণ্ডে জেরা করার জন্য সিবিআইয়ের তরফে নোটিস দেওয়া হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের ধারনা তাদেরকে সাক্ষী হিসেবে পেতে চাইছে সিবিআই। তা নিয়ে ইতিমধ্যেই উত্তাল হয়েছে রাজ্য-রাজনীতি। সোমবার মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে সেই সিবিআইকেই হাতিয়ার করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী।
এ দিন অধীর চৌধুরী বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, তিনি বাঘ। কিন্তু সিবিআই যে কারণে তদন্ত করতে চাইছে সেই কারণগুলিকে আমরা অস্বীকার করতে পারি না। আমরা চাইছি, সিবিআই নিরপেক্ষ তদন্ত করুক।” তারপরেই মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে অধীর বলেন, “আপনি কি বলতে পারেন বাংলায় বালি পাচার হয়নি? কয়লা পাচার হয়নি? গরু পাচার হয়নি? আপনি তো নিজেই বলেছেন কাটমানি ফেরত দিতে। আপনি তা হলে স্বীকার করবেন তো বাংলায় দুর্নীতি, লুঠপাট, স্মাগলিং হয়।”
সরকারি কার্যকলাপ ও প্রশাসনের ভূমিকার তীব্র কটাক্ষ করে প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি বলেন, “বছরের পর বছর ধরে গরু পাচার হচ্ছে, প্রশাসন জানত না? সরকারের নজরে পড়েনি? বিএসএফ জানত না? এখানকার কাস্টমস জানত না? সবাই সব কিছু জানে।’’ তাঁর সংযোজন, ‘‘ভোট এসেছে, তাই দিদি সকলের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছেন। এখন সিবিআই দিদির দুয়ারে চলে এসেছে।’’ জেলা তৃণমূলের অন্যতম কো-অর্ডিনেটর অশোক দাস বলেন, “অধীর চৌধুরী কী বললেন তা নিয়ে কারও কিছু যায় আসে না। বাংলার মানুষ আমাদের দলনেত্রীর সঙ্গেই আছেন।’’

 

(ফিচার ছবিটি গুগল থেকে নেওয়া)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here